বিদ্যুতের ‘ভৌতিক বিল’ নিয়ে বোমা ফাটালেন ব্যারিস্টার সুমন

সোস্যাল মিডিয়া
১২ অক্টোবর ২০২০, সোমবার
প্রকাশিত: ০২:০৪ আপডেট: ০২:০৫

বিদ্যুতের ‘ভৌতিক বিল’ নিয়ে বোমা ফাটালেন ব্যারিস্টার সুমন

বিদ্যুতের অস্বাভাবিক ও ভৌতিক বিল বন্ধে অবিলম্বে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সাইয়েদুল হক সুমন। 

রাজধানীর হাতিরপুরে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডের সামনে দাঁড়িয়ে ফেসবুক লাইভে এ দাবি জানিয়েছেন তিনি। 

ব্যারিস্টার সুমন বলেছেন, ‘সেপ্টেম্বর মাসে আমার বাসার বিদ্যুৎ বিল এসেছে ৩ হাজার ৩০০ টাকা। এর আগের মাসে এসেছিল ১৩০০ টাকা। চার মাস আগে এসেছিল ২৭০ টাকা। এর মাসে নিশ্চয় কোনও একটা ঝামেলা আছে। কারণ বাসায় শুধু আমি আর আমার পিএস থাকি। বাসায় কেন ১৩০০ থেকে হঠাৎ করে ৩ হাজার টাকা বিল আসবে। এটা শুধু আমার ক্ষেত্রে না। বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় বিলের যে দুর্নীতি শুরু হয়েছে, এটাকে আমি দুর্নীতি বলতে বাধ্য হচ্ছি। কারণ, একই বাসায় একই মানুষের কীভাবে ১৩০০ থেকে ৩৩০০ টাকা বিল হয়? এ ধরনের ৫ মাসের কাগজ জমা হয়েছে। এজন্য বিষয়টি নিয়ে কথা বলছি।’

তিনি বলেন, ‘বিদ্যুৎ বিলের উপরে লেখা আছে- ‘শেখ হাসিনার উদ্যোগ, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ’, অর্থাৎ তারা শেখ হাসিনার নাম ব্যবহার করে এখন প্রাতিষ্ঠানিক দুর্নীতি শুরু করেছে। ব্যক্তির বিরুদ্বেধ তো কথা বলা যায়, কিন্তু এতবড় প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কীভাবে কথা বলবেন?’

তিনি বলেন, ‘মাননীয় মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি, এই যে মানুষের যে দীর্ঘ নিঃশ্বাস নেত্রীর নাম ব্যবহার করে যে ভৌতিক বিল দেয়া শুরু করেছেন, সকালে উঠে যে অভিভাবক এরকম ভৌতিক বিল দেখে তার জীবন তো এভাবেই শেষ হয়ে যাচ্ছে।’

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘ধর্ষণ কি শুধু নারীর হয়? বিদ্যুৎ বিলের ধর্ষণ হচ্ছে না? যে বিল হওয়ার কথা ১৩০০ টাকা সেখানে সাড়ে ৩ হাজার, ৫ হাজার করে বিল বানাচ্ছেন। আমাদের বাঁচার কোনও পথ রাখছেন না। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি, এরা কিন্তু জনগণের ১২টা বাজিয়ে ছেড়ে দেবে।’

বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, ‘আমি বলবো, এখনও সময় আছে এই ভৌতিক বিল আপনারা চেক করেন। করোনাকালীন সময়ে তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছিল। এরা যা মনে চেয়েছে তাই বিল করেছে। এভাবে তো দেশ চলতে পারে না। অবিলম্বে ভৌতিক বিল বন্ধে ব্যবস্থা নিন। তা না হলে কখনও সোনার বাংলা গড়ে উঠবে না।’

ব্রেকিংনিউজ/এমআর

bnbd-ads