বেজোস, গেটসদের ‘দলে’ জাকারবার্গ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
৭ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার
প্রকাশিত: ০২:১৯

বেজোস, গেটসদের ‘দলে’ জাকারবার্গ

জনপ্রিয় চীনা ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিক টকের মতো যুক্তরাষ্ট্রে ‘ইন্সটাগ্রাম রিলস’ চালু করার ঘোষণা দেওয়ার পর ফেইসবুক প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের ব্যক্তিগত সম্পদ বেড়ে ১০০ বিলিয়ন বা ১০ হাজার কোটি ডলার হয়েছে।

সংক্ষিপ্ত ভিডিও শেয়ারিংয়ের নতুন এই অ্যাপ চালুর ঘোষণার পরপরই বৃহস্পতিবার ফেইসবুকের শেয়ারের দাম ৬ শতাংশের বেশি বেড়েছে। আর কোম্পানির ১৩ শতাংশের মালিকানা জাকারবার্গের হাতে থাকায় তারও সম্পদ বেড়েছে।

আর এর ফলেই ফেইসবুক প্রতিষ্ঠাতা জাকারবার্গ অ্যামাজনের জেফ বেজোস ও মাইক্রোসফ্টের বিল গেটসের সঙ্গে সবিশেষ তথাকথিত ‘শত কোটিপতি ক্লাবে’ যোগ দিলেন। ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়েছে।

কোম্পানির আকার ও ক্ষমতা এবং নিজেদের বর্ধমান সম্পদের কারণে প্রযুক্তি খাতের মহারথীরা সম্প্রতি আলোচনার পাদপ্রদীপে রয়েছেন। যেটা করোনাকালীন আরও বেড়েছে, তাদের দ্রুতগতিতে সম্পদ বৃদ্ধির কারণে।

করোনা ভাইরাসের কারণে আরোপিত লকডাউন ও বিধিনিষেধের সবচেয়ে বড় উপকারভোগীদের মধ্যে রয়েছে রফেইসবুক, অ্যামাজন, অ্যাপল ও গুগল। কারণ এই সময়ে মানুষ অনেক বেশি অনলাইনে কেনাকাটা করেছে, ভিডিও দেখেছে এবং সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে কাটিয়েছে।

ব্লুমবার্গের হিসাবে, এ বছর জাকারবার্গের ব্যক্তিগত সম্পদ বেড়েছে ২২ বিলিয়ন বা ২ হাজার ২০০ কোটি ডলার। যেখানে একই সময়ে জেফ বেজোসের বেড়েছে ৭৫ বিলিয়ন বা ৭ হাজার ৫০০ কোটি ডলার।

টিক টকের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে ফেইসবুকের মালিকানাধীন ইন্সটাগ্রামের আওতায় নতুন ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ রিলস চালু করার জন্য এর চেয়ে মহার্ঘ সময় আর হতে পারত না। কারণ ফেসবুকের এই ঘোষণার পরদিনই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প তার ভাষায় ‘যুক্তরাষ্ট্রে টিক টকের হুমকি’ মোকাবিলায় নতুন একটি নির্বাহী আদেশ জারি করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ পাঁচ প্রযুক্তি কোম্পানি- অ্যাপল, অ্যামাজন, অ্যালফাবেট (গুগলের মালিক), ফেইসবুক ও মাইক্রোসফ্ট- মিলে যে বাজারমূল্য রয়েছে তা দেশটির মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) প্রায় ৩০ শতাংশ।

তারপরও এই সপ্তাহে সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্স তার ভাষায় করোনা ভাইরাস মহামারির মধ্যে কোটিপতিদের ‘অশ্লীল সম্পদ বৃদ্ধির’ উপর কর বসানোর একটি প্রস্তাব হাজির করেছেন। ‘মেইক বিলিয়নিয়ার পে অ্যাক্ট’ শিরোনামে নতুন এই আইন পাশ হলে মহামারির শুরু থেকে বছরের শেষ পর্যন্ত সময়ে কোটিপতিদের বানানো বাড়তি আয়ের উপর ৬০ শতাংশ হারে কর দিতে হবে।

আদায়কৃত এই কর রাজস্ব আমেরিকানদের সামর্থের বাইরের চলে যাওয়া চিকিৎসা সেবার খাতে ব্যয় করার পরামর্শ দিয়েছেন।

এর আগে জাকারবার্গ অবশ্য বলেছিলেন, জীবনকালের মধ্যে তিনি ফেইসবুকের ৯৯ শতাংশ শেয়ার স্ত্রী প্রিসিলা চ্যানের সঙ্গে যৌথভাবে প্রতিষ্ঠিত দাতব্য ফাউন্ডেশনকে ছেড়ে দেবেন।

ব্রেকিংনিউজ/এম

bnbd-ads