বিমানবন্দর থেকেই দেড় শতাদিক বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠাল ইতালি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
৯ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ০২:২৮ আপডেট: ০২:৫৬

বিমানবন্দর থেকেই দেড় শতাদিক বাংলাদেশিকে ফেরত পাঠাল ইতালি

কাতার এয়ারওয়েজের দুটি ফ্লাইটে ইতালিতে যাওয়া ১৬৫ বাংলাদেশিকে ঢুকতে না দিয়েই ফেরত পাঠিয়েছে দেশটির সরকার। করোনা ভাইরাস পরীক্ষার ভুয়া সনদের কেলেঙ্কারির মধ্যেই এমন ঘটনা ঘটলো। এর আগে এক ফ্লাইটে ২২৫ জনের মধ্যে ৩৬ জনের করোনা পজিটিভ হওয়ায় এ পদক্ষেপ নিয়েছে ইতালি।

ইতালির বার্তা সংস্থা এএনএসএ জানায়, কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইট বুধবার (৮ জুলাই) রোমের ফিউমিচিনো বিমানবন্দরে নামার পর ওই বিমানে থাকা ১২৫ বাংলাদেশিকে নামার অনুমতি দেওয়া হয়নি। তবে ওই ফ্লাইটে এক বাংলাদেশী মহিলার শিশুবাচ্চা থাকায় মানবিক দিক বিবেচনা করে তাকে করোনা পরীক্ষা করে ইমিগ্রেশন পাড় হবার সুযোগ দেয়া হয় ।
 
যদিও ওই ফ্লাইটে থাকা অন্য দেশের যাত্রীদের নামিয়ে করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করা হয়। পরবর্তীতে বাংলাদেশি যাত্রীদের ওই বিমানে করেই ফেরত পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো। 

দেশটির সংবাদমাধ্যম লা রিপাবলিকা জানিয়েছে, ওই বিমানের যাত্রীদের মধ্যে ১৫ জন ইতালীয়সহ ৯৩ জনকে নামার অনুমতি দেওয়া হয় এবং করোনাভাইরাস পরীক্ষা করা হয়।

অন্য ঘটনাটি ঘটেছে মিলানের মালপেনসা বিমানবন্দরে। ওয়ান্টেড ইন রোম নামের একটি নিউজ পোর্টাল জানিয়েছে, সেখানে ৪০ জন বাংলাদেশিকে কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইট থেকে নামতে না দিয়ে একই বিমানে আবার দোহায় ফেরত পাঠানো হয়েছে। 

গত ৭ জুলাই ঢাকা থেকে যাওয়া যাত্রীদের মধ্যে ‘উল্লেখযোগ্য সংখ্যকের’ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ায় এক সপ্তাহের জন্য বাংলাদেশ থেকে সব ধরনের ফ্লাইট বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয় ইতালি সরকার। পাশাপাশি গত কয়েক সপ্তাহে ইতালিতে পৌঁছানো পাঁচ থেকে ছয়শ বাংলাদেশিকে খুঁজে বের করে পরীক্ষা করারও উদ্যোগ নিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য দপ্তর।

এর মধ্যে ইতালির রাজধানী রোম যে অঞ্চলে সেই লাৎসিও কর্তৃপক্ষ প্রবাসী বাংলাদেশিদের ঢালাও করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করানোর উদ্যোগ নিয়েছে।

এর আগে রয়টার্স এক প্রতিবেদনে জানিয়েছিল, ওই অঞ্চলে নতুন করে আক্রান্তদের মধ্যে ১০ জন বাংলাদেশি। তাদের মধ্যে সর্বশেষ শুক্রবার একজনের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে, যিনি মাত্রই দেশ থেকে ফিরেছেন।    

হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কাতার এয়ারওয়েজের এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, কাতার এয়ারওয়েজের ফ্লাইটে ইতালি থেকে যাদের ফেরত পাঠানো হয়েছে, তাদের বৃহস্পতিবার রাতে দেশ পৌঁছানোর কথা রয়েছে। 

বৃহস্পতিবার রাত ২টা ১০ মিনিটে দোহা থেকে কাতার এয়ারওয়েজের একটি ফ্লাইট ঢাকায় আসার কথা রয়েছে বলে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের পরিচালক এএইচএম তৌহিদ উল আহসান জানিয়েছেন। 

কাতার এয়ারওয়েজের মার্কেটিং বিভাগের একজন কর্মকর্তা বলেন, “ইতালি সরকার যতদিন না বাংলাদেশিদের প্রবেশের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা তুলে না নিচ্ছে, ততদিন তাদের বিমানে আর কোনো বাংলাদেশি ইতালি যেতে পারবেন না। তাই আমরা এখন ইতালীগামী যাত্রীদের টিকিট বুকিং বন্ধ রেখেছি।”

গত ফেব্রুয়ারিতে যখন ইতালিতে ব্যাপকভাবে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে সে সময় বাংলাদেশে এই রোগ পৌঁছায়নি। তখন ইতালিসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে দলে দলে প্রবাসীরা ফিরতে শুরু করে।

এক ভোরে ইতালি থেকে ফেরা কয়েকশ’ প্রবাসীকে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে রাখার জন্য বিমানবন্দর সংলগ্ন আশকোনা হজক্যাম্পে নেওয়ার পরও তাদের বিক্ষোভের মুখে ছেড়ে দেয় সরকার। ওই প্রবাসীদের বাসায় ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে বলা হয়।

এর কিছু দিন পরে বাংলাদেশের বিভিন্ন জায়গায় করোনা ভাইরাস সংক্রমণ দেখা দিতে শুরু করে। ৮ মার্চ প্রথমবারের মত যে তিনজনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়ার কথা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, তাদের দুজন ছিলেন ইতালিফেরত।

ইতালি অতি সংক্রামক এই রোগের বিস্তারে লাগাম পরাতে পারলেও ধুঁকছে বাংলাদেশ। গত মাসখানেকের বেশি সময় ধরে বাংলাদেশে প্রতিদিন তিন হাজারের বেশি নতুন রোগী শনাক্ত হচ্ছে। এরইমধ্যে সরকারি হিসাবে আক্রান্তের সংখ্যা এক লাখ ৭২ হাজার ছাড়িয়েছে, মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়িয়েছে দুই হাজার।

ব্রেকিংনিউজ/এম

bnbd-ads