করোনায় ইতালিতে প্রথম বাংলাদেশির মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২১ মার্চ ২০২০, শনিবার
প্রকাশিত: ০৯:১৬ আপডেট: ১০:২৫

করোনায় ইতালিতে প্রথম বাংলাদেশির মৃত্যু
প্রতিকী ছবি।

করোনা মহামারিতে ইতালির ৪ হাজার কফিনে প্রথম এক বাংলাদেশি যুক্ত হলেন। দেশটির লোম্বারদিয়া বিভাগের প্রধান রাজ্য মিলান প্রবাসী ওই ব্যক্তি (৫৬) শুক্রবার সন্ধ্যায় স্থানীয় একটি হাসপাতালে মারা যান। 

সম্প্রতি কোভিড-১৯ টেস্ট পজিটিভ হবার পর দ্রুত তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। দীর্ঘদিন থেকেই শ্বাসকষ্ট জনিত জটিলতায় ভুগছিলেন নোয়াখালী জেলার এই রেমিট্যান্স যোদ্ধা।  

ইতালির জাতীয় নাগরিক সুরক্ষা প্রধান আঞ্জেলো বোরেল্লি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন ৬২৭ জন নিয়ে সেখানে মৃত্যুর সংখ্যা ৪ হাজার ৩২ জন। নতুন করে ৫ হাজার ৯৮৬ জনসহ মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৭ হাজার ২১ জন। এছাড়া দেশটিতে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৫ হাজার ১২৯ জন। 

ইতালিতে বর্তমানে ৩৭ হাজার ৮৬০ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৩৫ হাজার ২০৫ জনের অবস্থা সাধারণ (স্থিতিশীল অথবা উন্নতির দিকে) এবং বাকি ২ হাজার ৬৫৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আক্রান্তের অনুপাতে মৃত্যুর হার ৪৪ শতাংশ এবং সুস্থতার হার ৫৬ শতাংশ।

উহান, চীনের শিল্পোন্নত একটি শহর। যেখান থেকে প্রথম করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে ভাইরাসটি প্রায় নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে। কিন্তু চীনের বাইরে ব্যাপক হারে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা।

করোনা ভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বজুড়ে ১ হাজার ৩৬৭ জনসহ মোট মৃত্যু হয়েছে ১১ হাজার ৩৯৮ জনের। এর মধ্যে ভাইরাসের উৎপত্তিস্থল চীনে মৃতের সংখ্যা ৩ হাজার ২৫৫। চীনের বাইরে মারা গেছে ৮ হাজার ১৪৩ জন। 

এ ভাইরাসে বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩০ হাজার ৯৩৮ জনসহ মোট আক্রান্ত হয়েছে ২ লাখ ৭৫ হাজার ৮৭১ জন। এর মধ্যে ৯১ হাজার ৯১২ জন সুস্থ হয়েছে বাড়ি ফিরেছেন। এছাড়া চীনের বাইরে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৯৪ হাজার ৮৬৩ জন। 

বিশ্বজুড়ে বর্তমানে ১ লাখ ৭২ হাজার ৫৬১ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে ১ লাখ ৬৪ হাজার ৭৯৬ জনের অবস্থা সাধারণ (স্থিতিশীল অথবা উন্নতির দিকে) এবং বাকি ৭ হাজার ৭৬৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আক্রান্তের অনুপাতে মৃত্যুর হার ১১ শতাংশ এবং সুস্থতার হার ৮৯ শতাংশ।

চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন জানায় গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে নতুন৭ জন নিয়ে সেখানে মৃত্যুর সংখ্যা ৩ হাজার ২৫৫ জন। নতুন করে ৪১ জনসহ মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮০ হাজার ৮ জন। এছাড়া চীনে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭১ হাজার ৭৪০ জন। 

চীনে বর্তমানে ৬ হাজার ১৩ জন আক্রান্ত রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে ৪ হাজার ৮৬ জনের অবস্থা সাধারণ (স্থিতিশীল অথবা উন্নতির দিকে) এবং বাকি ১ হাজার ৯২৭ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। আক্রান্তের অনুপাতে মৃত্যুর হার ৪ শতাংশ এবং সুস্থতার হার ৯৬ শতাংশ।

এর আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) প্রধান ড. টেড্রস আধানম গেব্রেইয়সুস অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেছেন, সরকারগুলো এই বৈশ্বিক মহামারি ঠেকাতে যথেষ্ট পদক্ষেপ নিচ্ছে না। তিনি সরকারগুলোকে নিজ নিজ দেশের করোনাভাইরাস পরীক্ষার ব্যবস্থা আরও বাড়ানোর ওপর জোর দিয়েছেন।

চীনে উদ্ভূত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা। এখন পর্যন্ত বিশ্বের ১৮৫টি দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

ব্রেকিংনিউজ/এম

bnbd-ads