একুশের অঙ্গীকার, জয় হোক মানবতার

রাফি রাজ
২ জানুয়ারি ২০২১, শনিবার
প্রকাশিত: ০১:০১

একুশের অঙ্গীকার, জয় হোক মানবতার

৬.৩০! নতুন বছরের প্রথম সকাল। ঘুম থেকে উঠে ওযু করে মাত্রই নামাজে দাঁড়িয়েছি। একটু দেরিই হয়ে গেল ঘুম থেকে উঠতে, কারণ ঘুমোতে অনেক রাত হয়ে গিয়েছিল। সেকারণে সকালে উঠতে দেরি, আর  নামাজেও বিলম্ব, ওদিকে আবার অফিসও রয়েছে সকালে।  

নতুন বছরের প্রথম দিনে যে কারণে কথাগুলো বলছি এবার সে ঘটনায় আসা যাক। নামাজে দাঁড়িয়ে সূরা ফাতিহা শেষ করে অন্য একটি সূরা ধরেছি মাত্র, এমন সময় মাইকে একটি ঘোষণা এলো। তখন কিঞ্চিত নামাজের মনোসংযোগও নষ্ট হলো। 

ঘোষক বলছেন, ‘একটি শোক সংবাদ! একটি শোক সংবাদ! বাড্ডানিবাসী ওমুকের ছেলে রফিকুল ইসলাম গত রাত বারোটায় ইন্তেকাল করেছেন  (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। জানাযার সময় এখনো ঠিক হয়নি, পরবর্তীতে জানাযার সময় জানিয়ে দেয়া হবে।’ 

কথাগুলো কানে আসার পর নামাজের মধ্যেই আমার বুকটা কেঁপে উঠলো, কারণ আমার নামটাও যে রফিকুল ইসলাম। ওই ব্যক্তিটা তো আমিও হতে পারতাম! আল্লাহর অশেষ রহমত যে তিনি আমাকে আরো একটি সুন্দর সকাল দান করেছেন।

যাইহোক, গতকাল ছিলো থার্টিফার্স্ট নাইট। সন্ধ্যার পর থেকে আমাদের ওই এলাকায় উচ্চস্বরে গান বাজানো হচ্ছিল। ঘড়ির কাটা রাত বারোটায় পৌঁছানো মাত্রই উচ্চস্বরে গানের সঙ্গে যোগ হয় পটকা আর আতশবাজির বিকট শব্দ। যা কিনা বিদেশি নতুন বছরকে স্বাগত জানায়। 

সে এক ভয়ঙ্কর পরিবেশ। সুনসান নিরবতার মধ্যরাতে উচ্চস্বরে গানের সঙ্গে  আতশবাজির বিকট শব্দ-মুহূর্তেই চাকচিক্যে রূপ নেয় তিলত্তমা ঢাকার শহর। আমরা যখন উল্লাসে মত্ত তখনই আমাদের এক প্রতিবেশি পৃথিবী থেকে চিরবিদায় নিয়েছেন। চিন্তা করতে পারেন ওই সময়টাতে, মৃত ব্যক্তির স্বজনদের মনের অবস্থাটা কেমন হতে পারে? আপনাদের এমন উদযাপন স্বজনদের কতটা কষ্ট বাড়িয়েছে? তাদের আতশবাজির প্রত্যেকটা শব্দ তাদের হৃদয়ে কতটা বিঁধেছে? 

হ্যাঁ, আপনারা উদযাপন করেন,  কিন্তু সে উদযাপন মানুষের কষ্টের কারণ হোক, বিরক্তির কারণ হোক, এটা কোনভাবেই কাম্য নয়। গ্রহণযোগ্যও নয়। বাসার ছাদে উচ্চস্বরে গান বাজালে, আশপাশের মানুষগুলোর যে কষ্ট হতে পারে, বিরক্তি লাগতে পারে, সেই বোধটা আমাদের থাকতে হবে। থাকতে হবে মানে থাকতেই হবে। তা না হলে কিসের মানুষ হলাম আমরা? কেমন মানুষ হলাম আমরা?

আসুন আমরা মানুষের কষ্ট ও দুঃখগুলোকে বোঝার চেষ্টা করি। সুখের সঙ্গে দুঃখের ভাগিও হওয়ার চেষ্টা করি, ঠিক যেভাবে ২০২০ সালে করোনার কঠিন সময়েও আমরা মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছি। তবেই না ২০২১ সাল আমাদের সামনে সুখ এবং শান্তি বয়ে নিয়ে আসবে। জয় হোক মানবতার।

ব্রেকিংনিউজ/এএফকে 

bnbd-ads