খাদের কিনারায় বাংলা ভাষার ভবিষ্যৎ

মোঃ আতিক ঢালি
২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ০১:৪২ আপডেট: ০১:৫১

খাদের কিনারায় বাংলা ভাষার ভবিষ্যৎ

বাংলা আমাদের মাতৃভাষা। শহীদের তাজা রক্তের বিনিময়ে অর্জিত এই ভাষার কি অবস্থা এখন! সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম আর একাডেমিক পড়াশোনা ছাড়া আর কোথাও বাংলা ভাষার তেমন কোনো ব্যবহার দেখা যাচ্ছে না। তবে এর পিছনে অনেক কারণ রয়েছে। আমাদের রাষ্ট্র কর্তৃক বাংলা ভাষা ব্যবহারের কোনো নির্দিষ্ট নীতিমালা নেই। তাই সরকারি ও বেসরকারি সকল অফিসেই চলছে ইংরেজি ভাষার বাধ্যগত ব্যবহার। 

যেকোনো চাকরিতে আবেদন করতে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই ইংরেজিতে নেওয়া হচ্ছে জীবন-বৃত্তান্ত। গুরুত্বপূর্ণ বা একটু উপরস্থ কোনো সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের নিয়োগেতো ইংরেজী ছাড়া ভাইভাও নেওয়া হয় না!

ফেসবুক ছাড়া অন্যান্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমন; ইন্সটাগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, উইচ্যাট ইত্যাদিতে আমরা বাঙালিরা বাংলা ব্যবহারই করি না! বিশ্বায়নের এই যুগে আমরা সবাই ইংরেজি ভাষাতে কোনো না কোনোভাবে জড়িয়ে যাচ্ছি। ফলে বাংলা ভাষার ব্যবহার পিছিয়ে পড়ছে। 

আমরা ভাষার জন্য আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের খেতাব পেলেও বহির্বিশ্বে কিংবা নিজেদের দেশেও বাংলা ভাষার ব্যবহার নিশ্চিত করতে পারিনি। 

এদিকে, ভাষার উপর অর্থনীতি ও রাজনীতির প্রভাব সবচেয়ে বেশি। বিশ্বে প্রভাব বিস্তারকারী দেশের ভাষা সবাই অনুকরণ করে। বিশ্বব্যাপী চায়না, আমেরিকা, ইংল্যান্ড, জার্মান, রাশিয়া-- এসব দেশের প্রভাব থাকায় তাদের ভাষা যতটা বিস্তৃতি লাভ করেছে অন্য কোনো ভাষা ততটা বিস্তৃতি লাভ করেনি। 

তবে প্রতি বছর ফেব্রুয়ারি মাস এলেই আমরা দেখি যে ভ্রাম্যমান আদালত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানকে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলায় তাদের প্রতিষ্ঠানের নামের সাইনবোর্ড না করায় জরিমানা করেন। ফেব্রুয়ারি শেষ হলে সারা বছরে এই বিষয়ে আর তেমন কোনো অভিযান বা তৎপরতা থাকে না। আর আমাদের দেশে উচ্চবিত্ত লোকেরা তাদের সন্তানদের ইংরেজি মাধ্যমে পড়াশুনা করানোকেই তাদের আর্থসামাজিকতার সাথে মানানসই মনে করেন। 

এভাবে একটি নির্দিষ্ট জনগোষ্ঠী একপ্রকার বাংলাবিমুখ হয়ে পড়ছে। আর আমাদের দেশের ভাষার রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমি বাংলা ভাষার সঠিক ব্যবহার ও সংরক্ষণে যথাযথ ব্যবস্থাও গ্রহণ করতে পারছে না। ফলে বাংলা ভাষা ধীরে ধীরে হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়ছে। 

আমাদের আদিবাসীদের ভাষার অবস্থা আরো করুণ। আদিবাসীরা সামাজিক, আর্থিক, শিক্ষা,  চিকিৎসা ইত্যাদির কারণে বাংলা ভাষা ব্যবহার করতে করতে তাদের নিজস্ব ভাষা হারিয়ে ফেলছে। আদিবাসী ভাষা এখন শুধু আদিবাসী দিবসের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্যেই সীমাবদ্ধ। 

বাংলা ভাষা ব্যবহার ও সংস্কৃতিকে ধরে রাখতে ব্যক্তি ও রাষ্ট্র উভয়কেই আরো যত্নশীল হতে হবে।

লেখক: ভাষাবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

ব্রেকিংনিউজ/অমৃ

bnbd-ads