তালাকের টাকায় বিশ্বের সবচেয়ে ধনীর তালিকায় তরুণী

রকমারি ডেস্ক
৬ জুন ২০২০, শনিবার
প্রকাশিত: ০৭:১৮

তালাকের টাকায় বিশ্বের সবচেয়ে ধনীর তালিকায় তরুণী

বিবাহবিচ্ছেদ বা তালাক নারী-পুরুষের জন্য দুঃসংবাদ হলেও এক চীনা তরুণী খুলে গেছে কপাল। তালাকের টাকায় বিশ্বের সবচেয়ে ধনীর তালিকায় উঠে এসেছে উয়ান লিপিং নামের ওই চীনা তরুণী।
 
এই বিবাহবিচ্ছেদটি এশিয়ার সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিবাহবিচ্ছেদ। ফলে বিশ্বের নারী ধনকুবেরদের তালিকায় যুক্ত হলেন উয়ান লিপিং। তিনি এখন এশিয়ার ধনীতম নারী।
 
ডেইলি মেইল জানিয়েছে, চীনের উয়ানের শিল্পপতি সাবেক স্বামী দু ওয়েইমেইন শেনঝেন কাংতাই বায়োলজিক্যাল প্রোডাক্টস কোম্পানির চেয়ারম্যান। তিনি সম্প্রতি বিবাহবিচ্ছেদের শর্ত হিসেবে তার প্রতিষেধক প্রস্তুতকারী সংস্থার ১৬১.৩ মিলিয়ন ডলারের শেয়ার দিয়েছেন তাকে।
 
চীনা বংশোদ্ভূত কানাডার নাগরিক উয়ান বর্তমানে চীনের শেনঝেন প্রদেশে থাকেন। ২০১১ সালের মে থেকে ২০১৮ সালের আগস্ট পর্যন্ত তিনি কাংতাই বায়োলজিক্যাল প্রোডাক্টস কোম্পানির পরিচালক ছিলেন।
 
বর্তমানে উয়ান অন্য একটি সংস্থার ভাইস জেনারেল ম্যানেজার পদে কর্মরত। ৪৯ বছর বয়সী এশিয়ার এই ধনীতম নারী বেজিংয়ের ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস অ্যান্ড ইকোনমিকস বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতিতে স্নাতক করেছে।
 
তবে উয়ান লিপিং ধনী হওয়ার পেছনে শুধু বিবাহবিচ্ছেদই নয়, করোনা ভাইসারও অংশদার। দেশটিতে করোনা ভাইরাস যখন মহামারি ধারণ করে, সেই তখন (গত ফেব্রুয়ারি) সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়, তারা করোনা ভাইরাসে প্রতিষেধক আবিষ্কার করার পরিকল্পনা করেছে। এর পরেই বাজারে তাদের শেয়ারের চাহিদা হু হু করে বেড়ে যায়।
 
চীনের অর্থনৈতিক উত্থানের সাম্প্রতিক ইতিহাসে ব্যয়বহুল বিচ্ছেদের নজির বিরল নয়। ২০১২ সালে চীনের ধনীতম নারী ছিলেন উ য়াজুন। তিনি বিবাহবিচ্ছেদের সময় তার সাবেক স্বামী কাই কুইকে ২৩০ কোটি ডলার দিয়েছিলেন। তার অনলাইন গেমিং সংস্থার মালিক ধনকুবের ঝোউ ইয়াহুই-কে তার সাবেক স্ত্রীর অ্যাকাউন্টে দিতে হয়েছিল ১১০ কোটি ডলার।
 
ব্রেকিংনিউজ/ এসএ

bnbd-ads