লকডাউনে বাড়ি ফিরতে ২৫ হাজার কেজি পিঁয়াজ কিনে হাজার কি.মি পাড়ি

রকমারি ডেস্ক
২৬ এপ্রিল ২০২০, রবিবার
প্রকাশিত: ০৬:০৩

লকডাউনে বাড়ি ফিরতে ২৫ হাজার কেজি পিঁয়াজ কিনে হাজার কি.মি পাড়ি

করোনার মহামারী চলছে বিশ্বজুড়ে। আর করোনা সংক্রমণ রুখতে লকডাউনের জেরে বিপদে পড়েছে দেশের গরিব, দিনমজুর শ্রমিকরা। এই অবস্থায় একেবার নাটকীয় এক পদক্ষেপ নিলেন এক শ্রমিক।
 
করোনভাইরাস মহামারীতে লকডাউনের নিয়ম ভেঙে বাড়ি আসতে ফাঁদলেন অভিনব এক ফন্দি। সত্যিই প্রশংসাযোগ্য সেই পরিকল্পনা।
 
নাম তার প্রেমমুর্তি পান্ডে। সেই ব্যক্তিই করোন ভাইরাস লকডাউন থেকে পালাতে নাটকীয় ফন্দি আঁটেন। শাকসবজি বিক্রেতা সেজে উত্তরপ্রদেশের নিজের বাড়িতে পৌঁছতে সক্ষম হন তিনি। তার এই ঘরে ফেরার কাহিনি বেশ আকর্ষণীয় এবং অভিনবও বটে। পুরো দেশ যখন লকডাউনে রয়েছে, তখন ১০০০ কিলোমিটারেরও বেশি ভ্রমণ করে তিনি ফিরলেন বাড়ি।
 
প্রেমমূর্তি মুম্বাই থেকে শুরু করে উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজে তার বাড়িতে পৌঁছন। তিনি বলেন, লকডাউন চলাকালীন আমি মুম্বাইয়ে ২১ দিন কাটিয়েছি। তবে শীঘ্রই লকডাউন শেষ হওয়ার কোনও লক্ষণ না থাকায়, বাড়িতে পৌঁছনোর একটি উপায় খুঁজেতে থাকি। পেয়েও যাই। তারপর পেঁয়াজ ব্যবসায়ী সেজে সটান হাজার কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে বাড়ি।
 
পান্ডে প্রথমে মুম্বাই থেকে মহারাষ্ট্রের পিম্পলগ্রামে হেঁটেছিলেন। তারপরে তিনি ১৩০০ কেজি তরমুজ কিনে মুম্বাইতে নিয়ে যান। তিনি ইতিমধ্যে মুম্বাইয়ের একটি ফল বিক্রেতার সাথে এই চুক্তি করেছিলেন।
 
এরপর পিম্পালগ্রামের পেঁয়াজের ব্যবসা পান্ডের নজর কেড়েছিল। তিনি সাবধানে বাণিজ্যটি পর্যবেক্ষণ করেন এবং দ্রুত লকডাউন থেকে বাঁচার জন্য তার পরিকল্পনাটি বাস্তবায়িত করেন।
 
তিনি পিম্পলগ্রামে ২৫ হাজার কেজি পেঁয়াজ কিনতে ২ লক্ষেরও বেশি ব্যয় করেছেন। একটি ট্রাকে পেঁয়াজ লোড করার পরে পান্ডে প্রয়াগরাজের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। ট্রাকভর্তি শাকসবজি প্রয়োজনীয় সামগ্রীর আওতায় আসায় চেকপয়েন্টগুলি এড়ানো তার পক্ষে সক্ষম হয়েছিল। এই পরিকল্পনাই তাকে সাফল্যের পথ দেখায়।
 
পান্ডে ২৩ শে এপ্রিল প্রয়াগরাজে পৌঁছেছিলেন। তারপরে তিনি পেঁয়াজ বিক্রি করার জন্য সরাসরি বাজারের দিকে যাত্রা করেছিলেন। তবে স্থানীয় বাজারগুলি যেহেতু পেঁয়াজ মজুত ছিল, তিনি ভালো দাম পাচ্ছিলেন না। প্রেমমুর্তি পান্ডে এখন স্থানীয় বাজারের পেঁয়াজ শেষ হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছেন, যাতে তিনি পোঁয়াজ বিক্রি করতে পারেন। ভালো লাভ করতে তিনি আশাবাদী।
 
ব্রেকিংনিউজ/অমৃ

bnbd-ads