এক লাফে হাজারের নিচে আক্রান্ত, মৃত্যু বেড়ে ৩১৫৪

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২ আগস্ট ২০২০, রবিবার
প্রকাশিত: ০২:৪৯ আপডেট: ০৪:৫৮

এক লাফে হাজারের নিচে আক্রান্ত, মৃত্যু বেড়ে ৩১৫৪

পবিত্র ঈদুল আজহার দ্বিতীয় দিন দেশে নতুন করে ২৪ ঘণ্টায় ৮৮৬ জন কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন। এই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২২ জনের।  

দেশে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২ লাখ ৪০ হাজার ৭৪৬ জন হয়েছে এবং মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৩ হাজার ১৫৪ জনে দাঁড়িয়েছে।

২৪ ঘণ্টায় মোট পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৪ দশমিক ০৫ শতাংশ ও এই সময়ের মধ্যে মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩১ শতাংশ। 

গত ২৪ ঘণ্টায় যারা মারা গেছেন তাদের মধ্যে পুরুষ ১৭ জন এবং নারী ৫ জন। এ পর্যন্ত যারা কোভিড আক্রান্ত মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের মধ্যে পুরুষের সংখ্যা ২ হাজার ৬৭৯ জন, ৭৮ দশমিক ৬০ শতাংশ এবং নারী ৬৭৫ জন, ২১ দশমিক ৪০ শতাংশ। 

রবিবার (২ আগস্ট) করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সরকারের জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) এর ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে নিয়মিত বুলেটিনে সংযুক্ত হয়ে এ তথ্য জানান স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা।

ডা. সুলতানা বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগ্রহ হয়েছে ৩ হাজার ২১৩টি। পরীক্ষা হয়েছে পূর্বের নমুনাসহ ৩ হাজার ৬৮৪টি। এ পর্যন্ত পরীক্ষা হয়েছে ১১ লাখ ৮৯ হাজার ২৯৫টি নমুনা।’

কোভিড-১৯ আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫৮৬ জন। এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১ লক্ষ ৩৬ হাজার ৮৩৯ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৬ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

তিনি আরও বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণকারীদের বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ২ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে ১ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে ৮ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে ৯ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের মধ্যে ২ জন রয়েছেন।’

এ পর্যন্ত বয়সভিত্তিক মৃত্যু শূণ্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে ১৮ জন, দশমিক ৫৭ শতাংশ; ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে ৩২ জন, ১ দশমিক ০১ শতাংশ; ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে ৮৭ জন, ২ দশমিক ৭৬ শতাংশ; ৩১ থেকে ৪০ বছরে ২০৭ জন, ৬ দশমিক ৫৬ শতাংশ; ৪১ থেকে ৫০ বছরে ৪৩৯ জন, ১৩ দশমিক ৯২ শতাংশ; ৫১ থেকে ৬০ বছরে ৯০৯ জন, ২৮ দশমিক ৮২ শতাংশ এবং ষাটোর্ধ্ব ১ হাজার ৪৬২ জন, ৪৬ দশমিক ৩৫ শতাংশ। 

ডা. সুলতানা বলেন, যে ২১ জন গত ২২ ঘণ্টায় মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৮ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৩ জন, খুলনা বিভাগে ৩ জন, রাজশাহী বিভাগে ৪ জন, বরিশাল বিভাগে ২ জন, রংপুর এবং সিলেট বিভাগে ১ জন করে রয়েছেন। তাদের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ২০ জন, বাড়িতে ২ জন।’

এ পর্যন্ত বিভাগভিত্তিক মৃত্যুর সংখ্যা ও শতকরা হারে ঢাকা বিভাগে ১ হাজার ৫০৫ জন, শতকরা হার ৪৭ দশমিক ৭২ শতাংশ; চট্টগ্রামে ৭৬৫ জন, ২৪ দশমিক ২৫ শতাংশ; রাজশাহী ১৯০ জন, ৬ দশমিক ০২ শতাংশ; খুলনা ২২৯ জন, ৭ দশমিক ২৬ শতাংশ; বরিশাল ১২৬ জন, ৩ দশমিক ৯৯ শতাংশ; সিলেটে ১৫২ জন, ৪ দশমিক ৮২ শতাংশ; রংপুরে ১১৯ জন, ৩ দশমিক ৭৭ শতাংশ এবং ময়মনসিংহ বিভাগে ৬৮ জন, ২ দশমিক ১৬ শতাংশ।

তিনি আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে এসেছেন ৩২৪ জন, ছাড় পেয়েছেন ১৮৫ জন। এ পর্যন্ত মোট আইসোলেশনে গেছেন ৫১ হাজার ৮০৫ জন। এ পর্যন্ত আইসোলেশন থেকে মুক্ত হয়েছেন ৩৩ হাজার ৮৫ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১৮ হাজার ৭২০ জন। 

ডা. সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টাইনে যুক্ত হয়েছেন ৯৯২ জন। এ পর্যন্ত মোট ৪ লাখ ৩৯ হাজার ১৩৩ জন। ২৪ ঘণ্টায় ছাড় পেয়েছেন ১ হাজার ৮৯৫ জন। এ পর্যন্ত ছাড় পেয়েছেন ৩ লাখ ৮৩ হাজার ৭৬৪ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৫৫ হাজার ৩৬৯ জন। 

ব্রেকিংনিউজ/এমআর

bnbd-ads