ঐক্য ছাড়া শান্তি আসবে না: বাইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২১ জানুয়ারি ২০২১, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ০৮:৩৭ আপডেট: ১২:৫০

ঐক্য ছাড়া শান্তি আসবে না: বাইডেন

যুক্তরাষ্ট্রের ৪৬তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে বুধবার (২০ জানুয়ারি) জো বাইডেনের পথচলা শুরু হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসের নজিরবিহীন এক সময়ে তিনি শপথ নিলেন। যখন দেশটি অভ্যন্তরীণ সহিংসতা, করোনা মহামারি মোকাবেলায় ব্যর্থতা, অর্থনৈতিক বিপর্যয় ও দুর্বল পররাষ্ট্রনীতির কারণে ভুগছে। এমন কঠিন বাস্তবতায় শপথ নেওয়া পর বিভক্তি ভুলে আমেরিকানদের একজোট হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “ঐক্য ছাড়া শান্তি আসবে না”।

শপথ গ্রহণ শেষে প্রেসিডেন্ট হিসেবে দেয়া প্রথম ভাষণে বাইডেন বলেন, ‘‘এটা আমেরিকার দিন। এটা গণতন্ত্রের দিন। ইতিহাস এবং আশার একটি দিন। আমরা আবারও গণতন্ত্রের মূল্য অনুধাবন করতে পেরেছি। গণতন্ত্র ভঙ্গুর এবং এই মুহূর্ত থেকে আমার বন্ধুরা, গণতন্ত্র সর্বত্র বিরাজমান। গণতন্ত্র খুবই মূল্যবান। আজ গণতন্ত্র রক্ষা পেয়েছে।”

প্রেসিডেন্ট বাইডেন সমাজে পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ আরো বাড়ানোর আহ্বান জানিয়ে বলেন, “আমেরিকার মাহাত্ম্যের জন্য একজোট থাকা জরুরি। চিৎকার করা বন্ধ করুন এবং উত্তেজনা কমান। ঐক্য ছাড়া শান্তি আসবে না। ঐক্যই সামনে অগ্রসর হওয়ায় ‍পথ।”

তিনি বলেন, “এখন থেকে পবিত্র এই ভূমিতে, যেখানে কয়েকদিন আগে ক্যাপিটলে তাণ্ডব হয়েছে যেখানে এক জাতি হিসেবে আমাদের আবার একত্রিত হতে হবে। আজ যুক্তরাষ্ট্রের গণতন্ত্র উঠে দাঁড়ানোর সময়। সব গ্লানি মুছে সব সময়ের মতো যুক্তরাষ্ট্র এগিয়ে যাওয়ার বার্তা দেওয়ার দিন আজ।”

জো বাইডেন বলেন, ‘আমার সমস্ত সত্তাজুড়ে একটাই আকুতি, আমরা ঐক্যবদ্ধ হব। আমি পুরো যুক্তরাষ্ট্রের মানুষকে আমার সঙ্গে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানাই। বিশ্বকে আমরা আমদের শক্তি দিয়ে নয়, নেতৃত্ব প্রদান করব উদাহরণ সৃষ্টি করে।’

যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতি ও সামজ ব্যবস্থায় দেয়া বিভক্তি সম্পর্কে বাইডেন বলেন, ‘‘যে অপশক্তি আমাদের বিভক্ত করেছে তার শেকড় সমাজের অনেক গভীরে পৌঁছে গেছে এবং এটা বাস্তব। কিন্তু এটা নতুন নয়। এ যুদ্ধ বহুদিন ধরে চলছে এবং বিজয় কখনোই সুনিশ্চিত নয়। ইতিহাস, বিশ্বাস ও কার্যকরণ ঐক্যের পথ দেখিয়েছে। ইউনাইটেড স্টেটস অব আমেরিকা হয়ে আমাদেরকে অবশ্যই ওই মুহূর্তে পৌঁছাতে হবে।”

বাইডেন বলেন, ‘চলুন নতুন করে শুরু করি। আমরা একে অন্যকে শোনার, শ্রদ্ধা করা শুরু করি। চলমান ভাবমূর্তির চেয়ে যুক্তরাষ্ট্র অনেক ভালো দেশ। মার্কিনরা জাতি হিসেবে শ্রেষ্ঠ—এ কথা আমাদের প্রমাণ করতে হবে।’

ভাষণে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বাইডেন বলেন, ‘‘একজন আমেরিকান হিসেবে সাধারণত কোনো জিনিসগুলো আমরা ভালোবাসি? সুযোগ-সুবিধা, নিরাপত্তা, স্বাধীনতা, আত্মমর্যাদা, সম্মান, মর্যাদা এবং হ্যাঁ, সত্য।”

গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটলের দাঙ্গার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘‘সেখানে যেমন সত্য আছে তেমনি মিথ্যাও আছে। ক্ষমতা এবং লাভের জন্য মিথ্যা বলা হয়েছে। আমাদেরকে অসভ্য এই যুদ্ধ বন্ধ করতে হবে। যেটা নীলের বিরুদ্ধে লালকে লেলিয়ে দিয়েছে।”

ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে কমলা হ্যারিসের অভিষেক মার্কিন সমাজ ও সাংস্কৃতিক মানসে পরিবর্তনের পরিচায়ক উল্লেখ করে বাইডেন বলেন, ‘আজকের এ সময় সব সংকট মোকাবিলার চ্যালেঞ্জ গ্রহণের মুহূর্ত। ঐক্যই এগিয়ে যাওয়ার মূলমন্ত্র। যারা আমাকে ভোট দিয়েছে, আর যারা দেননি—সবার জন্যই সমান লড়াই চালিয়ে যাব।’

মার্কিন অর্থনৈতিক সংকটে দুর্দশাগ্রস্ত জনগণের কথা উল্লেখ করে প্রেসিডেন্ট বাইডেন বলেন, ‘আমার কাছে সব বার্তাই আছে। আমরা আমদের হৃদয়কে সম্প্রসারিত করে নগর ও প্রান্তিক যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে বিদ্যমান সব বৈষম্য দূর করতে পারব। আমদের সমনে চলার জন্য একে অন্যকে প্রয়োজন। এক জাতি হিসেবেই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। আমরা এক হয়ে কঠিন এ সময়কে অতিক্রম করব।’

ব্রেকিংনিউজ/এম

bnbd-ads