চীনের সঙ্গে দ্বন্দ্বে মোদির মেজাজ ভালো নেই: ট্রাম্প

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
২৯ মে ২০২০, শুক্রবার
প্রকাশিত: ০২:৩৯

 চীনের সঙ্গে দ্বন্দ্বে মোদির মেজাজ ভালো নেই: ট্রাম্প

সম্প্রতি লাদাখে ভারত-চীন সীমান্ত ঘিরে সৃষ্ট উত্তেজনা নিরসনে প্রয়োজনে মধ্যস্থতা করতে প্রস্তুত যুক্তরাষ্ট্র। টুইটারে এমন বার্তা প্রকাশের একদিন পরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প হোয়াইট হাউজে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, এ বিষয়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে কথা হয়েছে তার। ভারত-চীন সীমান্ত দ্বন্দ্বের কারণে ‘প্রধানমন্ত্রী মোদির মেজাজ ভালো নেই।’ তবে ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলো দেশটির সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে ভিন্ন কথা জানিয়েছে, সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কোনো কথাই হয়নি নরেন্দ্র মোদির। খবর ইন্ডিয়া টুডে।

বুধবার (২৭ মে) ভারত ও চীনের চলমান সীমান্ত দ্বন্দ্বে মধ্যস্থতাকারীর ভূমিকা পালন করতে আমেরিকা ইচ্ছুক এবং প্রস্তুত বলে এক টুইট করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ট্রাম্প লিখেন, ‘আমরা ভারত ও চীন দুই দেশকেই জানিয়েছি, তাদের মধ্যেকার ক্রমবর্ধমান সীমান্ত বিরোধের মধ্যস্থতা বা সালিশি করতে যুক্তরাষ্ট্র প্রস্তুত, ইচ্ছুক ও সক্ষম। ধন্যবাদ!’

এর একদিন পর বৃহস্পতিবার ট্রাম্প জানালেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হয়েছে তার। এদিন হোয়াইট হাউজে এক সংবাদ সম্মেলনে ভারত ও চীন সীমান্তে সাম্প্রতিক উত্তেজনার প্রসঙ্গে এক সাংবাদিক ট্রাম্পের মতামত জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘ভারত ও চীনের মধ্যে বড় বিবাদ রয়েছে। দুই দেশেই ১৪০ কোটি করে মানুষ বাস করে। দুই দেশের সেনাবাহিনীও খুব শক্তিশালী। ভারত খুশি নয়, সম্ভবত চীনও খুশি নয়’।

ট্রাম্প আরও বলেন, ‘আপনাদের বলতে পারি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে আমার কথা হয়েছিলো। চীনের সঙ্গে যা হচ্ছে, এ নিয়ে তিনি ভাল মেজাজে নেই।’

এদিকে ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলো দেশটির সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, চলতি মাসে মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে কোন কথা হয়নি নরেন্দ্র মোদির। সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, গত ৪ এপ্রিলের পর দুই নেতার মধ্যে আর কোন কথা হয়নি।

ইন্ডিয়া টুডে তাদের প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ট্রাম্পের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী মোদির সর্বশেষ কথা হয়েছে গত এপ্রিলের ৪ তারিখ। ওই দিন চীন-ভারত সীমান্ত বিষয়ে নয়, ম্যালেরিয়ার ওষুধ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন বিষয়ে কথা বলেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

প্রসঙ্গত, ভারত ও চীনের প্রায় ৩৫০০ কিলোমিটার সীমান্তে উত্তেজনা বিরাজ করছে। সম্প্রতি লাদাখ ও উত্তর সিকিমের বিভিন্ন এলাকায় দুই দেশই সেনা ও যুদ্ধাস্ত্র মোতায়েন বাড়িয়েছে। ভারতের সংবাদমাধ্যমগুলো প্রতিবেদনে জানিয়েছে, উপগ্রহের পাঠানো ছবিতে দেখা গেছে, লাদাখ সীমান্তে ব্যাপক সেনা তৎপরতা বাড়িয়েছে চীন। ছবিতে দেখা গেছে প্যানগং লেক থেকে ২০০ কিলোমিটার দূরে চিনা বিমান ঘাঁটিতে অস্থায়ী পরিকাঠামো নির্মাণ চলছে। এছাড়া সীমান্ত এলাকায় কয়েক হাজার সেনা বাড়িয়েছে দেশটি।

ব্রেকিংনিউজ/এম

bnbd-ads