শক্তি হারিয়ে আম্পান এখন স্থল নিম্নচাপ

পরিবেশ প্রতিবেদক
২১ মে ২০২০, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ১০:৫৮

শক্তি হারিয়ে আম্পান এখন স্থল নিম্নচাপ

শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আম্পান সারারাত তাণ্ডব চালিয়ে দুর্বল হয়ে ঘূর্ণিঝড় থেকে স্থল নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। বর্তমানে এটি রাজশাহী অঞ্চলে অবস্থান করছে। ঘূর্ণিঝড়টি দুর্বল হয়ে পড়ায় সতর্ক সংকেত কমিয়ে এনেছে আবহাওয়া অফিস।

আবহাওয়া অধিদফতরের পরিচালক সামছুদ্দিন আহমেদ বৃহস্পতিবার (২১ মে) সকাল ১১ টায় বলেন, “আম্পান এখন স্থল নিম্নচাপে রূপ নিয়েছে। দেশের সমুদ্র বন্ধরগুলোকে মহাবিপদ সংকেত নামিয়ে ৩ নম্বর সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।”

ঘূর্ণিঝড় আম্পান বৃষ্টি ঝরিয়ে অনেকটাই দুর্বল হয়ে পড়েছে। আম্পানের প্রভাবে আজ সারাদেশেই ঝড়-বৃষ্টির হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে। কোথাও কোথাও ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগেও ঝড়-বৃষ্টি হতে পারে।

এর আগে বুধবার সকালে অতি প্রবল ঘূর্ণিঝড় আম্পান বাংলাদেশ উপকূলের কাছাকাছি চলে আসার পর মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর এবং চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরেও ৯ নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখাতে বলেছিল বাংলাদেশের আবহাওয়া অফিস।

উপকূলীয় জেলার দ্বীপ ও চরের নিম্নাঞ্চল স্বাভাবিক জোয়ারের চেয়ে ১০-১৫ ফুট বেশি উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসে প্লাবিত হতে পারে বলেও সতর্ক করে দেওয়া হয়েছিল।

বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৪টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদী বন্দরের পূর্বাভাসে এসব তথ্য জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর।

আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারীপুর, যশোর, কুষ্টিয়া, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও সিলেট অঞ্চলের ওপর দিয়ে দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরকে ২ নম্বর নৌ- হুঁশিয়ারী সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

এছাড়া দেশের অন্যত্র দক্ষিণ/দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫ থেকে ৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদীবন্দরকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আকাশ মেঘলা থেকে মেঘাচ্ছন্ন থাকতে পারে। বৃষ্টি/বজ্রবৃষ্টিসহ অস্থায়ীভাবে দমকা/ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। দক্ষিণ/দক্ষিণ-পশ্চিম থেকে ঘণ্টায় ১৫ থেকে ১৫ কিলোমিটার বেগে বাতাস প্রবাহিত হতে পারে। যা অস্থায়ীভাবে দমকা আকারে ঘণ্টায় ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার অথবা তার চেয়ে বেশি বেগে প্রবাহিত হতে পারে। দিনের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় আম্পান পূর্বাশঙ্কা অনুযায়ী বাংলাদেশ ও ভারতে গতকাল রাতে ব্যাপক তাণ্ডব চালিয়েছে। এর প্রভাবে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশে ৮ জন এবং ভারতে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। তবে মৃত্যু কম হলেও উপকূলীয় অঞ্চলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। বেড়িবাঁধ ভেঙে পানি ঢুকে পড়েছে। এতে বিস্তীর্ণ অঞ্চল লবণ পানিতে ডুবে গেছে। ফসলেরও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ব্রেকিংনিউজ/এম

bnbd-ads