সেফটিক ট্যাংকে মা-ছেলেসহ তিন জনের মৃত্যু

সাজ্জাদুল আলম খান, ভালুকা (ময়মনসিংহ)
৪ মার্চ ২০২১, বৃহস্পতিবার
প্রকাশিত: ০২:১২

সেফটিক ট্যাংকে মা-ছেলেসহ তিন জনের মৃত্যু

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার ধীতপুর ইউনিয়নের বহুলি এলাকায় একটি কারখানার সেফটিক ট্যাংকে পরে মা-ছেলেসহ তিনজনের মৃত্যু হয়েছে।

বুধবার (৩ মার্চ) রাত ৮ টার দিকে মরদেহগুলো উদ্ধার করা হয়।

নিহতরা হলেন, হৃদয় (২২), শ্রীমতি রুলি (৩০) ও তার ছেলে রুহিত বাচ্চি (৩)। নিহত হৃদয় ওই হ্যাচারিতে শ্রমিকের কাজ করতেন। হৃদয়ের বাড়ি রংপুর জেলার মিঠাপুকুর উপজেলায়।

ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, গোপালগঞ্জ জেলার বাসিন্দা প্রকৌশলী সজল বাচ্চি ভালুকা উপজেলার ধলিয়া বহুলী গ্রামে অবস্থিত ওই হ্যাচারির ভেতর সপরিবারে বসবাস করে চাকরি করে আসছিলেন। ঘটনার সময় সজল বাচ্চির ছেলে রুহিত বাচ্চি আবাসিক ভবনের নিচতলায় বিশাল আকৃতির সেপটিক ট্যাঙ্কির উপরে খেলাধুলা করছিল। এ সময় হঠাৎ করে সেপটিক ট্যাঙ্কির গ্যাপের ভাঙা অংশ দিয়ে নিচে পড়ে যায়।

এটি দেখে তার মা রুলি বাগচি সেখানে নেমে পড়ে। কিন্তু তারা উঠে না আসায় তাদের উদ্ধার করতে যায় হৃদয় মিয়া নামে এক নিরাপত্তাকর্মী। কিন্তু কেউ উঠে না আসায় কারখানার অন্য শ্রমিকরা পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেয়। পরে তারা গিয়ে ওই তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে।

ত্রিশাল ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাস্টার মনিম সরোয়ার জানান, সেপটিক ট্যাঙ্কিতে তিনজন পড়ে গেলে রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনজনকে উদ্ধার করা হয়েছে।

ভালুকা থানার ওসি মাহমুদুল ইসলাম তিন জনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, লাশ উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হচ্ছে। পরবর্তীতে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ব্রেকিংনিউজ/নিহে

bnbd-ads