রাতের ঢাকায় ‘হাতকাটা শাকিল’ এক নীরব ছিনতাইকারী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
২৬ জানুয়ারি ২০২১, মঙ্গলবার
প্রকাশিত: ০২:০৪ আপডেট: ০২:০৯

রাতের ঢাকায় ‘হাতকাটা শাকিল’ এক নীরব ছিনতাইকারী
ছবিতে গ্রেফতার ৫ জনের সবার বামে কথিত হাতকাটা শাকিল

ঢাকা মেট্রোপলিটন গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) প্রধান অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার জানিয়েছেন, সম্প্রতি ঢাকায় রাতের বেলা বিভিন্ন জায়গায় ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে। ছিনতাই ও ডাকাতিসহ বিভিন্ন সম্পত্তি-অর্থনৈতিক অপরাধ নিয়ন্ত্রণে গত ১৬ জানুয়ারি থেকে সাঁড়াশি অভিযান শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর ডিএমপি মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

গত শনিবার (২৩ জানুয়ারি) রাতে হাইকোর্ট মাজার সংলগ্ন ঈদগাহ মাঠের সামনের রাস্তায় দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাতে জাসদ নেতা মো. হামিদুল ইসলাম হত্যার ঘটনায় ৫ জনকে গ্রেফতার করে ডিএমপি’র গোয়েন্দা রমনা বিভাগের একটি টিম।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) রাজধানীর উত্তর মুগদা ও কামরাঙ্গীচর এলাকা হতে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন, মো. সোহেল ওরফে এরাবিয়ান হোসেন, মো. জাহিদ হোসেন, মো. শুকুর আলী, মো. শাকিল (২) ডুম্বাস ও মো. সোহেল মিয়া। এসময় তাদের কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি চাকু, একটি ব্যাটারিচালিত রিকশা, লুণ্ঠিত মোবাইল ফোন ও মানিব্যাগ উদ্ধার করা হয়।

মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) প্রধান অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, ‘জাসদ নেতা হামিদুল ইসলাম গত ২৫ বছর ধরে সেগুনবাগিচা হাইকোর্ট এলাকায় ক্যাবল নেটওয়ার্কের ব্যবসা করতেন। স্ত্রী-সন্তান নিয়ে সেগুনবাগিচা এলাকায় থাকতেন তিনি।’

গত ২৩ জানুয়ারি হামিদুল পুরান ঢাকাস্থ ফ্ল্যাটের বাসা ভাড়ার টাকা নিয়ে সেগুনবাগিচার বাসায় ফেরার পথে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় শাহবাগ থানায় একটি মামলা হয়। ডিবি রমনা বিভাগ এ মামলার ছায়া তদন্তের পর ওই ৫ জনকে গ্রেফতার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতাররা জানিয়েছে, তারা ব্যাটারিচালিত রিকশাযোগে হাইকোর্টের মাজার গেটের বিপরীত পাশে এসে অবস্থান করে। শাকিল ওরফে ডুম্বাস ব্যাটারিচালিত রিকশা নিয়ে অপেক্ষায় থাকে। আনুমানিক রাত সাড়ে ৮টার দিকে বাকি ৪ জন হাইকোর্টের ঈদগাহ মাঠের সামনে ফুটপাতের উপরে হামিদুলের গতিরোধ করে তার কাছ থেকে একটি স্যামসাং এ ২১-এস মোবাইল ও পকেট থেকে মানিব্যাগ ছিনিয়ে নেয়।

গ্রেফতাররা ভিকটিমের পকেটে থাকা টাকা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করলে ভিকটিম চিৎকার করে। তখন গ্রেফতার ছিনতাইকারী সোহেল তার নিকট থাকা চাকু দিয়ে ভিকটিমকে আঘাত করলে মারা যায় হামিদুল ইসলাম।

হাফিজ আক্তার বলেন, ‘অন্য কোনও উদ্দেশ্য ছিল কি-না সেটি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে গ্রেফতার সবাই পেশাদার ছিনতাইকারী। তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে অন্তত ১০টি করে ছিনতাই-ডাকাতির মামলা রয়েছে। প্রত্যেকবারই তারা জামিনে বেরিয়ে একই অপরাধে জড়িয়ে পড়ে।’

ব্যাটারিচালিত রিকশাচালক মো. শাকিলের হাত কাটা (হাত কাটা শাকিল)। মানবিক কারণে পুলিশ তাকে ব্যাটারিচালিত রিকশাটি চালাতে বাধা দেয়নি। ঢাবি ক্যাম্পাস এলাকায় সে নির্বিঘ্নে রিকশা চালায়। গ্রেফতারের পর জানা যায় সেও পেশাদার ছিনতাইকারী।

ছিনতাই-ডাকাতি বেড়ে যাওয়ায় কি ঢাকায় টহল-নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে, জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কতোগুলো সামাজিক প্রভাব কাজ করে। যেমন করোনা ক্রান্তিকালে কিন্তু প্রতারণা ছিনতাইসহ অনেক ধরনের অপরাধই বৃদ্ধি পায়, ঘটতেই থাকে। ঢাকায় দুই কোটি মানুষ। পুলিশের কাজ আইনশৃঙ্খলা স্বাভাবিক রাখাসহ জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা। আর অপরাধীদের কাজ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে লুকিয়ে অপরাধ সংঘঠিত করা।’

তিনি বলেন, ‘প্রতি রাতেই যে ছিনতাই হচ্ছে তা নয়, তবে প্রায়শই ঘটছে। সেজন্যই আমরা টহল জোরদার করেছি। আমরা গত সপ্তাহে অনেক ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছি। এবার ছিনতাইসহ খুনের ঘটনায় আমরা আইনগত ব্যবস্থা নিয়েছি। আমরা বিট পুলিশিং বৃদ্ধি করেছি।’

ছিনতাইয়ের মামলা বা অভিযোগ থানায় পুলিশ নিতে চায় না- এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি’র এ অতিরিক্ত কমিশনার বলেন, ‘আমরা থানায় অভিযোগের ভিত্তিতে বলবো ছিনতাই বৃদ্ধি পেয়েছে কিনা। সে রকম কিন্তু তাৎপর্যপূর্ণ বলা যাবে না ছিনতাই বৃদ্ধির সংখ্যা। আর থানায় ভুক্তভোগীদের ছিনতাইয়ের মামলা না নিলে ঊর্ধ্বতনদের জানাবেন। পাশাপাশি ছিনতাইয়ের ঘটনায় মামলা না করার প্রবণতাও রয়েছে।’ সেটা না করে থানায় অভিযোগ করতে নগরবাসীকে অনুরোধ জানান তিনি।

ব্রেকিংনিউজ/টিটি/এমআর

bnbd-ads