গমের আরো নতুন দুটি জাত উদ্ভাবন

দিনাজপুর প্রতিনিধি
২৬ অক্টোবর ২০২০, সোমবার
প্রকাশিত: ০১:৫১ আপডেট: ০২:৪৮

গমের আরো নতুন দুটি জাত উদ্ভাবন

গমের আরো দুটি নতুন জাত উদ্ভাবন করেছে বাংলাদেশ গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনষ্টিটিউট। ডাব্লিউএমআরআই গম-ওয়ান এবং ডাব্লিউএমআরআই গম-টু ব্লাস্ট নামে রোগ সহনশীল দুটি তাপ সহনশীল জাত উদ্ভাবনের মাধ্যমে গম চাষে নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হয়েছে। আরো আরেকটি নতুন জাত ডাব্লিউএমআরআই গম-থ্রি উদ্ভাবন নিয়ে গবেষণা চলছে। যা শিগগিরই উদ্ভাবনের সম্ভবনা রয়েছে।

এরই মধ্যে রোগ প্রতিরোধী ও জিংক সমৃদ্ধ গমের উচ্চফলণশীল নতুন নতুন জাত উদ্ভাবন ও প্রযুক্তি হস্তান্তরে দিনাজপুরসহ উত্তরাঞ্চলে গম চাষে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকের। লাভজনক হওয়ায় অন্যান্য ফসলের চেয়ে কৃষক এখন গম চাষে বেশি ঝুঁকছেন। দিগন্ত বিস্তৃত মাঠে গম চাষ ও পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছেন কৃষক।

দিনাজপুরস্থ বাংলাদেশ গম ও ভুট্রা গবেষণা ইনস্টিটিউটের “বার্ষিক গবেষণা পর্যালোচনা ও কর্মসূচি প্রণয়ন” তিন দিনব্যাপী কর্মশালায় জানানো হয়েছে, গমের আরো নতুন দুটি জাত উদ্ভাবন করেছে। গত সেপ্টেম্বরে ডাব্লিউএমআরআই গম-ওয়ান এবং ডাব্লিউএমআরআই গম-টু ব্লাস্ট নামে রোগ সহনশীল দুটি তাপ সহনশীল গমের নতুন জাত উদ্ভাবন করা হয়েছে। 

বাংলাদেশ গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক কৃষিবিদদ প্রকৌশলী ড. এছরাইল হোসেন জানান, বাংলাদেশ গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনস্টিটিউটে এ পর্যন্ত ৩৬টি নতুন জাত উদ্ভাবন করেছে। এর মধ্যে গমের ব্লাস্ট প্রতিরোধী ও জিং সমৃদ্ধ জাত বারি গাম ৩৩ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। ইনষ্টিটিউট ডাব্লিউএমআরআই গম ওয়ান এবং ৯ সেপ্টেম্বর ডাব্লিউএমআরআই গম টু ব্লাস্ট রোগ সহনশীল নামে দুটি তাপ সহনশীল জাত অবমুক্ত করেছে। এছাড়ার ভুট্রার নতুন ১৯টি হাইব্রিড জাত ও ৭টি ওপেনপলিনেটেড কম্পোজিট জাত উদ্ভাবন করেছে।

সরেজমিনে পরিদর্শনে এসে কৃষি মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব কমলারঞ্জন দাশ জানান, নতুন নতুন গম ও ভুট্টার জাত উদ্ভাবনে কাজ করছে, বাংলাদেশ গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনস্টিটিউট। তাদের উদ্ভাবিত রোগ প্রতিরোধী ও জিংক সমৃদ্ধ উচ্চফলণশীল গমের নতুন নতুন জাত কৃষকের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছায় গম চাষে আগ্রহ বেড়েছে কৃষকের।

উত্তরাঞ্চলের অনগ্রসর বিলুপ্ত ছিট মহলগুলো ঘুরে দেখা গেছে, পতিত ও অনাবাদি জমিতে কৃষক গম ও ভুট্টাচাষে বেশি আগ্রহী। পঞ্চগড়ের বিলুপ্ত ছিটমহল রাজমহলের কৃষক মোকাররম হোসেন জানান, ধানসহ অন্য ফসলের চেয়ে গম চাষে সেচ কম লাগে তেমনি খরচও কম। তাছাড়া ব্লাস্ট রোগ প্রতিরোধী নতুন জাতের গম চাষে তারা শঙ্কামুক্ত হয়েছেন।

তাপসহনশীল বিডাব্লুউএমআরআই-ওয়ান এবং বিডাব্লুউএমআরআই-টু নামে গমের নতুন জাত দু’টি কৃষকদের সরবরাহ করা হলে আগামীতে গমের উৎপাদন আরো বাড়বে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

মূলতঃ গম ও ভুট্রার নতুন নতুন জাত উদ্ভাবন করে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে, বাংলাদেশ গম ও ভুট্রা গবেষণা ইনস্টিটিউট। তাদের এই সাফল্য এখন অনেকের অনুপ্রেরণা। তাদের এই জাতগুলো কৃষকের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছালে এ অঞ্চলে গম ও ভুট্টার চাষাবাদ আরো রেড়ে যাবে এমনটাই মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

ব্রেকিংনিউজ/এমজি

bnbd-ads